Friday, June 21, 2024
No menu items!
Home Blog

চোখের জলে অবসরে তামিম ইকবাল

হঠাৎ সংবাদ সম্মেলন করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। আজ বৃহস্পতিবার (৬ জুলাই) দুপুর দেড়টায় চট্টগ্রামের একটি হোটেলে এ সিদ্ধান্ত জানান তিনি।

তামিম বলেছেন, ‘গতকাল আফগানিস্তানের বিপক্ষে আমার শেষ ম্যাচ ছিল। আমি এখন অবসরের ঘোষণা দিলাম।’

নিজের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ১৬ বছরের দীর্ঘ ক্যারিয়ারের জন্য তামিম সতীর্থ, কোচ, বিসিবি, পরিবার ও সমর্থকদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘ক্যারিয়ারের এই দীর্ঘ পথচলায় আমার সব সতীর্থ, সব কোচ, বিসিবির কর্মকর্তাগণ, আমার পরিবার ও যারা আমার পাশে ছিলেন, নানাভাবে সহায়তা করেছেন, ভরসা রেখেছেন এবং আমার ভক্ত-সমর্থক, বাংলাদেশ ক্রিকেটের অনুসারী, সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। আপনাদের সবার অবদান ও ভালোবাসায় আমি চেষ্টা করেছি সব সময় দেশের জন্য নিজের সবটুকু উজাড় করে দিতে।’

তামিম অবসর পরবর্তী জীবনের জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন। তিনি বলেন, ‘জীবনের নতুন অধ্যায়ের জন্য সবার কাছে দোয়া চাই। সবাইকে আবারও ধন্যবাদ।’

বিশ্বকাপের বাকি আর মাত্র তিন মাস। তার আগেই তামিমের এমন সিদ্ধান্ত দেশের ক্রিকেটাঙ্গনে নতুন মোড় দিয়েছে বলা যায়। এখন ক্রিকেট বোর্ডকে নতুন করে অধিনায়ক খুঁজতে হবে । আপাতত এ সিরিজে নেতৃত্ব দেবেন লিটন দাস।

অধিনায়ক হিসেবে তামিমের সাফল্য চোখে পড়ার মতোই। ৩৭ ম্যাচের ২১টিতে জিতেছেন তিনি। ১৪ ম্যাচে হার ও দুই ম্যাচ পরিত্যক্ত মিলিয়ে ৫০ ওভারের ক্রিকেটে এটি তার সাফল্য হিসেবে দেখা হবে।

আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহার কমিটি গঠন।

0
আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহার কমিটি গঠন।
আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহার কমিটি গঠন।

দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ড. আবদুর রাজ্জাককে আহ্বায়ক এবং তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদকে সদস্য সচিব করা হয়েছে।

বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিষয়টি ঢাকা পোস্টকে নিশ্চিত করেছেন আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ।

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগদানের উদ্দেশে যুক্তরাষ্ট্র সফরে যাওয়ার আগে এই কমিটি গঠন করেছেন।

ইশতেহার কমিটির সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন ড. মসিউর রহমান, ড. অনুপম সেন, ড. সাত্তার মন্ডল, ড. বজলুল হক খন্দকার, অধ্যাপক আআমস আরেফিন সিদ্দিক, ড. শামসুল আলম, ডা. দীপু মনি, ড. হাছান মাহমুদ, অ্যাডভোকেট শম রেজাউল করিম, শেখর দত্ত,ড.মাকসুদ কামাল,ড. মাহফুজুর রহমান, অধ্যাপক খায়রুল হোসেন, অধ্যাপক সাদেকা হালিম, সাজ্জাদুল হাসান, অ্যাডভোকেট তারানা হালিম, ওয়াসিকা আয়েশা খান, ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, জুনাইদ আহমেদ পলক, ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, অধ্যাপক মোহাম্মদ এ আরাফাত, অ্যাডভোকেট সায়েম খান, সাদিকুর রহমান চৌধুরী ও সাব্বির আহমেদ এফসিএ।

আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ বলেন, আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগদানের উদ্দেশ্যে যুক্তরাষ্ট্র সফরে যাওয়ার আগে এই কমিটি গঠন করেছেন। বৃহস্পতিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টায় ২৩ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে দলের প্রধান কার্যালয়ে ইশতেহার প্রণয়ন কমিটির প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হবে। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

সাঈদীর মৃত্যু: বিএসএমএমইউয়ের চিকিৎসককে হত্যার হুমকি, থানায় জিডি

0

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) হৃদরোগ বিভাগের অধ্যাপক ডা. এস এম মোস্তফা জামানকে হত্যার হুমকির অভিযোগ উঠেছে। মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে আমৃত্যু কারাদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর বিশেষজ্ঞ মেডিকেল বোর্ডের সদস্য ছিলেন ডা. মোস্তফা জামান।

হত্যার হুমকির বিষয়ে মঙ্গলবার (১৫ আগস্ট) দিনগত মধ্যরাতে নিজে ধানমন্ডি মডেল থানায় গিয়ে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন ডা. মোস্তফা জামান।

ধানমন্ডি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পারভেজ ইসলাম জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এরকম কিছু স্ক্রিনশট ডিজিতে যুক্ত করা হয়েছে

ওসি বলেন, অধ্যাপক ডা. এস এম মোস্তফা জামানকে প্রাণনাশের হুমকির বিষয়ে তিনি থানায় হাজির হয়ে একটি জিডি করেছেন। জিডিতে তিনি ফেসবুক গ্রুপ ও ম্যাসেঞ্জারে হুমকির বিষয়ে তথ্য দিয়েছেন। এ ঘটনা তদন্ত করে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

জিডিতে ডা. এস এম মোস্তফা জামান উল্লেখ করেছেন, গত ১৩ আগস্ট মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে আমৃত্যু কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী অসুস্থ অবস্থায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। হৃদরোগ বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক চৌধুরী মেশকাত আহমেদের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১৪ আগস্ট রাত ৮টা ৪০ মিনিটে সাঈদী মৃত্যুবরণ করেন। আমিও বিশেষজ্ঞ টিমের একজন সদস্য হিসেবে আমার ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করি।

তিনি জিডিতে আরও লিখেছেন, কতিপয় ব্যক্তি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও ইউটিউবে বিভিন্ন আইডি থেকে আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছে। আমার ম্যাসেঞ্জারে ভীতি এবং প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে।

এদিকে সাঈদীর চিকিৎসার বিষয়ে বিস্তারিত জানাতে বুধবার (১৬ আগস্ট) বিকেল ৩টায় সংবাদ সম্মেলন ডেকেছে বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষ।

হঠাৎ অসুস্থ বোধ করলে গত রোববার বিকেলে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগার থেকে দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে বিএসএমএমইউ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার দিনগত রাত ৮টা ৪০ মিনিটে তার মৃত্যু হয়।

চীনে আওয়ামী লীগের জাতীয় শোক দিবস পালন

0

বিভিন্ন কর্মসূচি ও যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক পালন করেছে আওয়ামী লীগের চীন শাখার নেতাকর্মীরা। এ উপলক্ষে মঙ্গলবার (১৫ আগস্ট) দোয়া মাহফিল, কাঙালিভোজ ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

আওয়ামী লীগের চীন শাখার সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল মোমিন চৌধুরীর সঞ্চলনায় আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি জনি বেপারী।

সভায় বক্তব্য দেন সংগঠনের সহ-সভাপতি মো. শামীম শেখ, মো. আতিক খান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. রাশেদ, ডা. শাফিয়া তানান, চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগ নেতা মো. শাহেদুল আলম, মো. গিয়াস উদ্দিন, সৈকত বিশ্বাস ঋষি, মো. জাকির হোসেন, রিসাডসহ অন্যান্য নেতারা।

নেতাকর্মীরা চীনের গুয়াংজোতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন, দোয়া মাহফিল ও খাদ্য বিতরণ করেন।

খালেদা জিয়াকে নিয়ে ভালো-মন্দ বলার সময় আসেনি: ডা. জাহিদ

0

রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য বিষয়ে ভালো-মন্দ বলার মত সময় এখনো আসেনি বলে জানিয়েছেন তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও দলটির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন।

মঙ্গলবার (১৫ আগস্ট) দিনগত রাতে খালেদার চিকিৎসক দলের এই সদস্য জাগো নিউজকে এ তথ্য জানান।

ডা. জাহিদ হোসেন বলেন, চিকিৎসকরা ম্যাডামকে (খালেদা জিয়া) নিবিড় পর্যবেক্ষণে রেখেছেন। ভালো-মন্দ নিয়ে এখনই বলার সময় আসেনি। উনার শারীরিক অবস্থা একেবারে ভালো বা একেবারে খারাপ কোনোটিই বলা সম্ভব নয়।

হঠাৎ অসুস্থ বোধ করলে চিকিৎসকদের পরামর্শে গত ৯ আগস্ট দিনগত রাতে বিএনপি চেয়ারপারসনকে এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গত এক সপ্তাহ ধরে তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন আছেন।

এর আগে গত ১০ জুন দিনগত রাত পৌনে ৩টার দিকে এভারকেয়ার হাসপাতালে নেওয়া হয়েছিল খালেদা জিয়াকে। সেখানে প্রায় দুই সপ্তাহ চিকিৎসা নিয়ে ২৪ জুন সন্ধ্যায় হাসপাতাল থেকে বাসায় ফেরেন তিনি। এর ঠিক দেড় মাস পর আবারও তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

‘বিদেশে যাওয়া যাবে না এবং বাড়িতে বসে চিকিৎসা নিতে হবে’- এ দুই শর্তে অন্তর্বর্তীকালীন মুক্তিতে রয়েছেন খালেদা জিয়া।

৭৭ বছর বয়সী খালেদা জিয়া দীর্ঘদিন ধরে আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিস, কিডনি, লিভার ও হৃদরোগে ভুগছেন। মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসকেরা তার পরিপাকতন্ত্রে রক্তক্ষরণ ও লিভার সিরোসিসে আক্রান্ত হওয়ার কথা জানিয়েছিলেন।

সারাদেশে করোনা মহামারি চলাকালে ২০২১ সালের এপ্রিলে তিনি কোভিডে আক্রান্ত হন। এরপর বেশ কয়েকবার অসুস্থতার কারণে তাকে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে হয়েছে।

২০২০ সালের ২৫ মার্চ ‘দ্য কোড অব ক্রিমিনাল প্রসিডিউর’-এর ধারা-৪০১ (১)-এর ক্ষমতাবলে সরকারের নির্বাহী আদেশে প্রথমবারের মতো শর্তসাপেক্ষে ছয় মাসের অন্তর্বর্তীকালীন মুক্তি পান খালেদা জিয়া। ওই বছরের সেপ্টেম্বরে তার মুক্তির মেয়াদ আরও ছয় মাস বাড়ানো হয়। এরপর দফায় দফায় বাড়ে তার মুক্তির মেয়াদ। সবশেষ গত মার্চ মাসে শর্ত অপরিবর্তিত রেখে আরও এক দফা তার দণ্ড স্থগিত করে মুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর আবেদনে সায় দেয় সরকার।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন বকশীবাজার আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ আদালত। রায় ঘোষণার পর খালেদাকে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে অবস্থিত পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি রাখা হয়।

ওই বছরের ৩০ অক্টোবর বিচারিক আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে করা আপিলে আরও পাঁচ বছরের সাজা বাড়িয়ে ১০ বছর করেন হাইকোর্ট। একই বছরের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদার সাত বছরের সাজা হয়।

আনুষ্ঠানিকভাবে আল হিলালে যোগ দিলেন নেইমার

0

ফরাসি ক্লাব পিএসজি ছেড়ে আনুষ্ঠানিকভাবে সৌদি আরবের আল হিলালে যোগ দিলেন নেইমার। ৩১ বছর বয়সী ব্রাজিলিয়ান তারকাকে দলে টানার কথা মঙ্গলবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে জানায় সৌদি প্রো লিগের দলটি।

ক্লাবের টুইটারে পোস্ট করা ভিডিওতে নেইমার বলেন, ‘আমি সৌদি আরবে আছি। আমি আল হিলালি।’

চুক্তির মেয়াদ বা ট্রান্সফার ফি নিয়ে ক্লাবের পক্ষ থেকে কিছু বলা হয়নি। তবে জানা গেছে, নেইমারকে নিতে পিএসজিকে ৯০ মিলিয়ন ইউরো ট্রান্সফার ফি দিচ্ছে আল হিলাল। আর নেইমার দুই মৌসুমে পাবেন ৩২০ মিলিয়ন ইউরো বেতন।

শুধু এখানেই শেষ নয়। বেতনের সঙ্গে বেশ বড় কিছু সুযোগ-সুবিধা পাবেন নেইমার। যার মধ্যে রয়েছে প্রাইভেট বিমান, গার্লফ্রেন্ড ব্রুনো ব্য়িানকার্দির সঙ্গে থাকা, কর্মচারীসহ বিশাল বাসা, আল হিলালের প্রতি জয়ে বাড়তি ৮০ হাজার ইউরো বোনাস, সৌদিকে প্রমোট করে কোনো পোস্ট বা স্টোরি দিলে প্রতিটিতে ৫ লাখ ইউরো করে উপহার।

আল হিলাল সৌদি আরব এবং এশিয়ার সবচেয়ে সফল ক্লাব। তাদের নামের পাশে ৬৬টি ট্রফি। সর্বোচ্চ সংখ্যক লিগ (১৮) এবং এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন্স লিগ (৪) শিরোপা জেতার রেকর্ডও এই ক্লাবের দখলে।

বিদেশিরা বাংলাদেশের মানুষের মঙ্গল চায় না : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

0

বিদেশিরা বাংলাদেশের মানুষের মঙ্গল চায় না বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, তারা এখানে অশান্তি চায়। অশান্তির ফলে দেশ যদি দুর্বল হয়, তাতে তাদের সুবিধা হয়। ওদের ভেলকিতে আপনারা পা দেবেন না।

বুধবার (৯ আগস্ট) বিকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে বাংলাদেশ স্টাডি ট্রাস্ট আয়োজিত ‘বাংলাদেশের সাম্প্রতিক উন্নয়নের গতি-প্রকৃতি’ শীর্ষক নাগরিক সংলাপে তিনি এ কথা বলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দেশের উন্নয়ন দেশের মানুষ করবে। আমরা আওয়ামী লীগ আমাদের জনগণকে বিশ্বাস করি। জনগণের রায়েই আমাদের অবস্থান হবে। বিদেশিরা কে কী বলল, সেটির কোনো গুরুত্ব নেই।

তিনি বলেন, গত ছয় মাসে ৬০টি দেশে নির্বাচন হয়েছে। আগামী জাতীয় নির্বাচনের আগে আরও ২২টি নির্বাচন রয়েছে। কিন্তু দুঃখের বিষয় ইউএন স্টেট ডিপার্টমেন্ট, ইউএন ইউএসএ ডিপার্টমেন্টে ও ইউএনএ— তাদের প্রতিদিন বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে কথা বলতে হয়। কিন্তু এই যে আমি শ’খানেক নির্বাচনের কথা বললাম, তাদের এ নিয়ে কোনো কথা নেই। বিদেশি দেশগুলোর মূল আলোচনার বিষয় হলো অর্থনীতি। আপনারা পারলে বাংলাদেশের এ ইস্যু নিয়ে কথা বলুন।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়নের গতি প্রকৃতি কীভাবে ধরে রাখা যায় সেদিকে আলোকপাত করা উচিত। দুনিয়ার অনেক জায়গায় নির্বাচন হয় কিন্তু সেখানে এ ধরনের কথাবার্তা হয় না। ২০০১-২০০৬ পর্যন্ত আমাদের অর্থনীতি ও সামাজিক অবস্থা দিকে তাকালেই দেখা যাবে আমাদের অবস্থা কী ছিল। তা দেখলেই আপনারা বুঝতে পারবেন বাংলাদেশের জন্য কে উপযুক্ত। জাতির সামাজিক ও অর্থনৈতিক অগ্রগতি দেখলে ভবিষ্যতে মানুষ কাকে নির্বাচিত করবে সেটি পরিষ্কার হয়ে যাবে।

রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা উন্নয়নের পথ আগলে রাখে মন্তব্য করে ড. মোমেন বলেন, যেসব দেশ উন্নত, সেসব দেশের রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা রয়েছে। যেসব দেশে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা নেই তারা ইরাক ও লিবিয়ার মতো মারামারি-কাটাকাটি করছে। আমরা দেশে শান্তি-শৃঙ্খলা চাই। তাহলে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটি উন্নত দেশ রেখে যেতে পারব। অন্যথায় যদি বিএনপি-জামায়াত নির্বাচিত হয় তাহলে বাংলাদেশ ফের ৬৪টি জেলায় একযোগে বোমা হামলা, জঙ্গিবাদ ও গ্রেনেড হামলাসহ নানা নৈরাজ্য সৃষ্টি হবে। আবারও বাংলাদেশ দুর্নীতিতে প্রথম হবে।

এতে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ স্টাডি ট্রাস্টের ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রফেসর ড. উত্তম কুমার বড়ুয়া।

আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ স্টাডি ট্রাস্টের সাধারণ সম্পাদক টি এইচ এম জাহাঙ্গীর, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রফেসর ড. মুহাম্মদ মাহবুবুর রহমান লিটু, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মিল্টন বিশ্বাস, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সাহাদাত হোসেন সিদ্দিকী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. ফারুক শাহ ও দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার সম্পাদক ড. খান আসাদুজ্জামান।

‘আমাদের অন্ধের ঘরে প্রধানমন্ত্রী আলো জ্বেলেছেন’

0

‘আমাদের অন্ধের ঘরে প্রধানমন্ত্রী আলো জ্বেলেছেন। ৪০ বছর আগে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই চোখ হারিয়েছি, কাজকর্মে অক্ষম। আমার স্ত্রী হাট-বাজারে ঝাড়ু দিয়ে যা আয়-রোজগার করে তা দিয়ে কোনোরকমে আমাদের সংসার চলে। দুই ছেলে-মেয়ের মধ্যে ছেলেটা প্রতিবন্ধী। আমাদের কোনোকালেই মাথা গোঁজার ঠাঁই ছিল না।’

চোখ মুছতে মুছতে কথাগুলো বলছিলেন যশোর সদর উপজেলার বসুন্দিয়া গ্রামের ভূমিহীন ঝন্টু বাঁশফোড়।

বুধবার (৯ আগস্ট) সকালে সদর উপজেলায় প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের উপহারের জমিসহ ঘর নিতে আসেন অন্ধ ঝন্টু বাঁশফোড় এবং তার স্ত্রী যমুনা সাহা।

যমুনা সাহা ঢাকা পোস্টকে বলেন, আমরা কোনোদিন কল্পনাও করতে পারিনি যে আমাদের নিজেদের মাথা গোঁজার ঠাঁই হবে। আমরা ভেবেছিলাম মরার আগ পর্যন্ত আমাদের নিজেদের ভিটেমাটি বলতে কিছু হবে না।

এ সময় জমিসহ ঘর পাওয়া সদর উপজেলার কাশিমপুর গ্রামের ইজিবাইকচালক মোহাম্মদ আলী ঢাকা পোস্টকে বলেন, ‘আমার বাপ-দাদার কোনোকালে জায়গা-জমি ছিল না। স্বাধীনতার পর থেকে পরের বাড়িতে ভাড়া থেকেছি। প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেয়ে আমরা অনেক খুশি।’

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারা দেশের ন্যায় যশোরের পাঁচ উপজেলার ভূমি ও গৃহহীন ১৮৮ জনকে দুই শতক জায়গাসহ উপহার হিসেবে ঘর বিতরণ করেছেন। এর মধ্যে সদর উপজেলার ৫৮ জনকে ঘর ও জমি দেওয়ার মধ্য দিয়ে এ উপজেলাকে ভূমি ও গৃহহীনমুক্ত ঘোষণা করা হয়। এর আগে, চলতি বছরের ২২ মার্চ যশোরের তিন উপজেলা শার্শা, বাঘারপাড়া ও কেশবপুর উপজেলা ভূমি ও গৃহহীনমুক্ত এলাকার স্বীকৃতি পায়।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী সারা দেশে ভূমি ও গৃহহীনদের ঘরবাড়ি দিতে বদ্ধপরিকর বর্তমান সরকারপ্রধান। এজন্য যেখানেই সরকারের খাস জমি আছে সেগুলো উদ্ধারের পর বাড়ি তৈরি করা হচ্ছে। যেসব জায়গায় পর্যাপ্ত জমি নেই, সেখানে কেনা হচ্ছে জমি। শুধু তাই নয়, প্রভাবশালীদের অবৈধ দখলে থাকা খাসজমি উদ্ধার করে আশ্রয়ণের ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। এ পর্যন্ত যশোর জেলায় ঘর ও ভূমি পেয়েছে দুই হাজার ৯৪টি পরিবার। আজ (৯ আগস্ট) চতুর্থ পর্যায়ে (২য় ধাপ) জমিসহ ঘর পাচ্ছে আরও ১৮৮ পরিবার। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ৫৮, অভয়নগরে ৯, মণিরামপুরে ৩৫, ঝিকরগাছায় ৪০ ও শার্শায় ৪৬ পরিবার ঘর পাচ্ছে। এছাড়া নির্মাণকাজ চলছে আরও ২৫টি ঘরের। আর নতুন করে বরাদ্দ পাওয়া গেছে ৭৩টি।

সদর উপজেলার হলরুমে ঘর হস্তান্তর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবরাউল হাছান মজুমদার, সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) অনুপ দাশ, সদর উপজেলার চেয়ারম্যান মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী, ভাইস-চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বিপুল, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান জোৎস্না আরা মিলি প্রমুখ।

ডেঙ্গুতে ১২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ২৮৪৪

0

মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত (একদিনে) ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে দেশে আরও ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। একইসঙ্গে এই সময়ে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ২৮৪৪ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

আক্রান্তদের মধ্যে ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১০৯২ জন আর ঢাকার বাইরের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১৭৫২ জন।

বুধবার (৯ আগস্ট) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে মোট ৯ হাজার ৪২৭ জন ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসাধীন আছেন। ঢাকার সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে বর্তমানে ৪ হাজার ৪২১ জন এবং অন্যান্য বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে ৫ হাজার ৬ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি রয়েছেন।

চলতি বছর ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ৭৫ হাজার ৬৯ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিয়েছেন। এর মধ্যে ঢাকায় ৩৮ হাজার ৮১৪ জন এবং ঢাকার বাইরে চিকিৎসা নিয়েছেন ৩৬ হাজার ২৫৫ জন।

আক্রান্তদের মধ্যে হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৬৫ হাজার ২৯০ জন। ঢাকায় ৩৪ হাজার ১১৭ এবং ঢাকার বাইরে ৩১ হাজার ১৭৩ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

চলতি বছর ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত ৩৫২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

স্বাস্থ্যকর উপায়ে ওজন বাড়ানোর ৫ খাবার

0

ক্যালোরির বিষয়টি একটু জটিল। ধরুন আপনি অতিরিক্ত ক্যালোরি গ্রহণ করলেন, আপনার ওজন বাড়তে শুরু করলো। আবার দীর্ঘ সময় ধরে কম ক্যালোরি গ্রহণ করার ফলে আপনার ওজন কমতে থাকবে। শুধু তাই নয়, ওজন কমে যাওয়ার কারণে একটা সময় তা বিভিন্ন অসুখের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। তাই সঠিক বৃদ্ধি এবং বিকাশের জন্য আপনার কতটা ক্যালোরি প্রয়োজন তা জানতে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন। ইন্টারনেটে ওজন কমানোর অনেক টিপস খুঁজে পাবেন, তবে স্বাস্থ্যকর উপায়ে ওজন বাড়ানোর পদ্ধতি সহজলভ্য নয়।

স্বাস্থ্যকর উপায়ে ওজন বৃদ্ধির সবচেয়ে ভালো উপায় হলো স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া। তবে কোনো খাবারই অতিরিক্ত খাওয়া উচিত নয়। কারণ ওজন অতিরিক্ত হয়ে গেলে তখন আবার তা কমানো মুশকিল হয়ে যেতে পারে। খাদ্যে থাকা ক্যালোরি মূলত সেই শক্তি যা আপনাকে সক্রিয় থাকতে এবং সারাদিন চলতে সাহায্য করে। এটি শরীরকে সঠিকভাবে কাজ করতে সাহায্য করে। সেইসঙ্গে স্বাস্থ্যকর বিপাক এবং হজমেও সহায়তা করে। চলুন জেনে নেওয়া যাক উচ্চ ক্যালোরিযুক্ত স্বাস্থ্যকর ৫ খাবার সম্পর্কে, যা আপনার স্বাস্থ্যকর উপায়ে ওজন বাড়াতে কাজ করবে-

সাদা ভাত

ক্যালোরি এবং কার্বোহাইড্রেটের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য উৎসগুলোর মধ্যে একটি হলো এই সাদা ভাত। ইউএসডিএ অনুযায়ী, এক কাপ রান্না করা ভাতে ২০৪ ক্যালোরি এবং ৪৪ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট থাকে। এছাড়াও, এতে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার, ভিটামিন এবং বিভিন্ন প্রয়োজনীয় খনিজ থাকে যা ভাতকে একটি স্বাস্থ্যকর খাবার তৈরি করে। কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই ওজন বাড়াতে চাইলে সাদা ভাত খাওয়ার অভ্যাস করতে পারেন। তবে অতিরিক্ত খাওয়া যাবে না। আপনার প্রতিদিন যতটা ক্যালোরি প্রয়োজন, তার সঙ্গে সমন্বয় করে খেতে হবে।

পিনাট বাটার

দীর্ঘকাল ধরে পিনাট বাটার মূলধারার খাদ্যের একটি অংশ হয়ে উঠেছে। এই খাবারের জনপ্রিয়তার একটি বড় কারণ হলো, এর উপকারিতা সমূহ। সাধারণ বাটারের বদলে পিনাট বাটারে কম ট্রান্স-ফ্যাট থাকে। তবে এটি ক্যালোরি দিয়ে পূর্ণ। ইউএসডিএ-এর তথ্য অনুসারে, এক মুঠো কাঁচা বাদামে প্রোটিন, ভিটামিন, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অন্যান্য স্বাস্থ্যকর পুষ্টির পাশাপাশি ১৭০ ক্যালোরি থাকে। তাই নাস্তায় পরিমাণমতো পিনাট বাটার রাখলে তা স্বাস্থ্যকরভাবে আপনার ওজন বাড়াতে কাজ করবে।

গ্রানোলা

গ্রানোলা জনপ্রিয় ব্রেকফাস্ট আইটেম। এটি ক্যালোরি দিয়ে পূর্ণ। দানা শস্য, বাদাম, বীজ এবং শুকনো ফলের মতো উপাদান একসঙ্গে মিশিয়ে খাওয়া হয় এই নাস্তায়। এসব উপাদানের প্রতিটিতে থাকে প্রচুর কার্বোহাইড্রেট, যা মধু বা ম্যাপেল সিরাপের সঙ্গে মিশিয়ে খেলে আরও বেশি ক্যালোরি পাওয়া যায়। প্রিজারভেটিভ এড়ানোর জন্য দোকান থেকে না কিনে বাড়িতে তৈরি গ্রানোলা খাওয়ার অভ্যাস করুন।

কলা

নিঃসন্দেহে কলা সারা বিশ্বে সবচেয়ে জনপ্রিয় ফল। এটি সারা বছর পাওয়া যায় এবং নিজেই একটি স্বাস্থ্যকর খাবার। অনেকে উচ্চ কার্ব এবং ক্যালোরির কারণে কলা এড়িয়ে চলে। কিন্তু কলা না খাওয়ার মাধ্যমে আপনি আপনার খাদ্য থেকে ফাইবার, পটাসিয়াম, প্রোটিন ইত্যাদির মতো পুষ্টিও বাদ দিচ্ছেন। বিশেষজ্ঞরা ভালো হজম এবং অন্যান্য শারীরিক ক্রিয়াকলাপ বজায় রাখতে প্রতিদিন পরিমিত পরিমাণে কলা খাওয়ার পরামর্শ দেন।

ফুল-ফ্যাট ডেইরি

দুধ প্রক্রিয়াকরণের সময় তার পুষ্টি কমে যায়, এটি স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী নয়। শরীরে শক্তি উৎপাদনের জন্য ক্যালসিয়াম, ভিটামিন, প্রোটিন এবং উল্লেখযোগ্য পরিমাণ ক্যালোরি যোগ করতে চাইলে দুধ পান করতে হবে। এক্ষেত্রে ফুল-ফ্যাট দুধ এবং দুগ্ধজাতীয় পণ্য খাওয়ার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।

গয়েশ্বরের ওপর হামলা নিয়ে যা বলছে যুক্তরাষ্ট্র

0

বাংলাদেশে চলমান বিক্ষোভে সহিংসতা ও ভীতি প্রদর্শন নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এছাড়া সহিংসতা ও হামলার ঘটনায় স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ তদন্ত করা এবং দায়ীদের আইনের আওতায় আনার আহ্বানও জানিয়েছে দেশটি।

একইসঙ্গে মানুষকে শান্তিপূর্ণ সমাবেশ করার সুযোগ দেওয়া এবং সেই লক্ষ্যে নিরাপদ পরিবেশ তৈরি করতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ওয়াশিংটন।

স্থানীয় সময় সোমবার (৩১ জুলাই) মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের ওয়েবসাইটে ওই ব্রিফিংয়ের বিস্তারিত বক্তব্য তুলে ধরা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে এক সাংবাদিক ম্যাথিউ মিলারের কাছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) শীর্ষস্থানীয় নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায়সহ বিরোধী নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা এবং অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজন নিশ্চিত করতে যুক্তরাষ্ট্র আরও কী পদক্ষেপ নিতে পারে সে প্রসঙ্গটি সামনে আনেন।

ওই সাংবাদিক বলেন, বাংলাদেশে ক্ষমতাসীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পদত্যাগের দাবিতে রাজধানী ঢাকায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে লাখো মানুষ। স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক মিডিয়ার রিপোর্টে বলা হয়েছে, শনিবার পুলিশ ও ক্ষমতাসীন দলের সদস্যরা শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভে অংশ নেওয়া মানুষ এবং বিরোধী নেতাদের ওপর নির্মমভাবে হামলা চালায়, যার ফলে শীর্ষস্থানীয় বিরোধী নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায়সহ শতাধিক আহত হয়েছেন।

তিনি প্রশ্ন করেন, ক্রমবর্ধমান এই পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণসহ বিরোধী দলের ওপর পুলিশের বর্বরতা এবং এ বিষয়ে সরকারের স্পষ্টত কট্টরপন্থি অবস্থান বিবেচনা করে সামগ্রীক বিষয়কে আপনি কীভাবে মূল্যায়ন করবেন? বাংলাদেশে বিশ্বাসযোগ্য ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের সম্ভাবনা নিশ্চিত করতে মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্ট কী পদক্ষেপ নেবে?

জবাবে ম্যাথিউ মিলার বলেন, আমরা এই সপ্তাহান্তের রাজনৈতিক বিক্ষোভকে ঘিরে বাংলাদেশে ভীতি প্রদর্শন এবং রাজনৈতিক সহিংসতার ঘটনায় উদ্বিগ্ন। আমরা এসব সহিংসতার পুঙ্খানুপুঙ্খ, স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ তদন্ত করতে এবং সহিংসতায় জড়িত অপরাধীদেরকে জবাবদিহির আওতায় আনতে বাংলাদেশ সরকারকে উৎসাহিত করি।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের জনগণ যেন শান্তিপূর্ণভাবে সমবেত হয়ে সমাবেশ করতে পারে এবং তাদের উদ্বেগ প্রকাশ করতে পারে সেজন্য নিরাপদ পরিবেশ তৈরি করতে আমরা আহ্বান জানাচ্ছি। একইসঙ্গে সকল পক্ষকে মৌলিক স্বাধীনতা ও আইনের শাসনকে সম্মান করতে এবং সহিংসতা, হয়রানি ও ভীতি প্রদর্শনের মতো কাজ থেকে বিরত থাকতেও আমরা আহ্বান জানাই।

মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের এই মুখপাত্র বলেন, পরিশেষে আমি বলব, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন সকলের দায়িত্ব ও প্রতিশ্রুতির ওপর নির্ভর করে। এখানে ভোটার, রাজনৈতিক দল, যুব সমাজ এবং পুলিশ; সবার ওপর দায়িত্ব রয়েছে। আর রাজনৈতিক সহিংসতার পরিবেশে এটি (অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন) হতে পারে না।

পরে এক সাংবাদিক প্রশ্ন করেন, বাংলাদেশ জাতীয় নির্বাচনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে এবং বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া নিশ্চিত করার জন্য যুক্তরাষ্ট্র ভিসা নীতিও ঘোষণা করেছে। এছাড়াও ক্ষমতাসীন প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নকে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন করার বিষয়ে নিশ্চিত করেছেন। কিন্তু প্রধান বিরোধী দল গত সপ্তাহে দেশের রাজধানীতে অগ্নিসংযোগ, সন্ত্রাস ও ভাঙচুর চালিয়েছে। তারা শুধু বেসামরিক সম্পত্তি নয়, পুলিশের সম্পত্তিও আক্রমণ করছে। সেখানে তারা সবকিছু পুড়িয়ে দিয়েছে। তারা রাজধানীতে যুদ্ধক্ষেত্রের মতো পরিস্থিতি তৈরি করেছে। এ বিষয়ে আপনার মন্তব্য কি?

জবাবে মিলার বলেন, আমি আগের প্রশ্নের উত্তরে এ বিষয়ে আমার মন্তব্য করেছি।

এই পর্যায়ে ওই সাংবাদিক বলেন, আমি আপনার কাছ থেকে শুধুমাত্র একটি পর্যবেক্ষণ চাই, গত ১৫ জুন কানাডার ফেডারেল বিচারক বিএনপিকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসাবে চিহ্নিত করেছেন। এ নিয়ে পঞ্চমবারের মতো দলটিকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে আখ্যা দিল তারা। সে বিষয়ে আপনার পর্যবেক্ষণ কি?

জবাবে মিলার বলেন, এ বিষয়ে আমার কোনও পর্যবেক্ষণ নেই।