Friday, June 21, 2024
No menu items!
আন্তর্জাতিকস্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে শুরু হয়েছে কপ-২৬ সম্মেলন

স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে শুরু হয়েছে কপ-২৬ সম্মেলন

স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে গত ৩১ অক্টোবর থেকে শুরু হয়েছে ২০২১ সালের বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলন (কপ-২৬), যেখানে বিশ্ব নেতারা একত্রিত হয়েছেন যা আগামী ১২ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে। জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় এই সম্মেলনকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মনে করা হচ্ছে। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল জাতিসংঘ ফ্রেমওয়ার্ক কনভেনশন অন ক্লাইমেট চেঞ্জের (ইউএনএফসিসিসি) ২৬তম অধিবেশন কপ-২৬-এ ভাষণ দেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ’প্রধান নির্গমনকারীদের অবশ্যই উচ্চাভিলাষী এনডিসি (জাতীয়ভাবে নির্ধারিত অবদান) জমা দিতে হবে এবং সেগুলো বাস্তবায়ন করতে হবে। জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবিলায় বাংলাদেশ তার প্রচেষ্টার পরিপূরক হিসেবে ১২ বিলিয়ন ডলারের বিদেশী বিনিয়োগ সম্বলিত ১০টি কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র বাতিল করেছে। সরকার সম্প্রতি ইউনিসেফ-এ একটি উচ্চাভিলাষী এবং আপডেট এনডিসি জমা দিয়েছে। “বাংলাদেশে বিশ্বের অন্যতম বিস্তৃত অভ্যন্তরীণ সৌর শক্তি প্রোগ্রাম রয়েছে। আমরা আশা করি ২০৪১ সালের মধ্যে দেশের ৪০ শতাংশ শক্তি নবায়নযোগ্য উত্স থেকে পাওয়া যাবে।’

শেখ হাসিনা উল্লেখ করেন যে, ১.১ মিলিয়ন জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের নাগরিক বা রোহিঙ্গাদের কারণে বাংলাদেশ জলবায়ু প্রভাবের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার চেষ্টা করছে। তিনি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশ সবচেয়ে জলবায়ু-ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলির মধ্যে একটি, যদিও এটি বৈশ্বিক নির্গমনের ০.৪৭ শতাংশেরও কম অবদান রাখে। হাসিনা উল্লেখ করেন যে সরকার এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় ২০০৯ সালে “বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাস্ট ফান্ড প্রতিষ্ঠা করেছে। আমরা গত সাত বছরে জলবায়ু সংক্রান্ত খরচ দ্বিগুণ করেছি। বর্তমানে, আমরা জাতীয় অভিযোজন পরিকল্পনা তৈরি করছি।’

ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরাম (সিভিএফ) এবং ভি২০-এর চেয়ার হিসেবে বাংলাদেশ ৪৮টি জলবায়ু-ঝুঁকিপূর্ণ দেশের স্বার্থ প্রচার করছে। সিভিএফ-এর পক্ষ থেকে হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ একটি জলবায়ু জরুরি চুক্তি প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করছে।

কনফারেন্স অব দ্য পার্টিজ কে সংক্ষেপে কপ বলে। এটি জাতিসংঘের একটি উদ্যোগ। ১৯৯৫ সালে কপের প্রথম সম্মেলন হয়। গ্লাসগোতে হচ্ছে কপের ২৬তম সম্মেলন। তাই একে বলা হচ্ছে ‘কপ-২৬’। মনুষ্য কারণে জীবাশ্ম জ্বালানির নির্গমন বৃদ্ধির ফলে পৃথিবী দিন দিন উষ্ণ হচ্ছে। দাবদাহ, দাবানল ও বন্যার মতো জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট চরমভাবাপন্ন আবহাওয়া তীব্রতর হচ্ছে। গত দশক ছিল রেকর্ড উষ্ণ। বিশ্বের সরকারগুলো একমত যে এ বিষয়ে জরুরি ভিত্তিতে যৌথ পদক্ষেপ দরকার। কপ-২৬ সম্মেলনে বিশ্বের ২০০টি দেশের কাছে ২০৩০ সালের মধ্যে কার্বন নিঃসরণ কমানোর বিষয়ে তাদের পরিকল্পনা জানতে চাওয়া হবে। জলবায়ু বিপর্যয় এড়াতে এই দেশগুলো ২০১৫ সালের প্যারিস চুক্তিতে বৈশ্বিক উষ্ণতা প্রাক্‌-শিল্পায়ন যুগের চেয়ে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি যাতে না বাড়ে, সে ব্যাপারে সম্মত হয়েছিল। এটাই প্যারিস চুক্তি নামে পরিচিত। এই চুক্তির মানে হলো ২০৫০ সালের মধ্যে কার্বন নিঃসরণ কার্যত শূন্যে নামিয়ে আনার জন্য দেশগুলো ব্যাপকভাবে নিঃসরণ কমাবে। ‘আইপিসিসি’ হলো জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক আন্তদেশীয় প্যানেল। এই প্যানেল জলবায়ু পরিবর্তন–সম্পর্কিত সবশেষ গবেষণা যাচাই করে। প্রাক্‌-শিল্পায়ন যুগের তুলনায় তাপমাত্রা বৃদ্ধি ১ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে রাখা গেলে জলবায়ু পরিবর্তনের বিপর্যয়কর প্রভাব এড়ানো যাবে বলে মত দেন বিজ্ঞানীরা।

এ বছরের কপ-২৬ শীর্ষ সম্মেলনের সভাপতি, ব্রিটিশ মন্ত্রী অলোক শর্মা বলেছেন, ’এই শতাব্দীর শেষ নাগাদ বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধি হার এক-পয়েন্ট-পাঁচ ডিগ্রিতে বা তার নীচে সীমাবদ্ধ রাখতে হলে এখনি পদক্ষেপ নিতে হবে।’ ব্রিটিশ মন্ত্রী আরও বলেছেন, ’বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধি কমিয়ে আনতে না পারলে পুরো পৃথিবী যেমন বিপর্যয়ের মুখে পড়বে, তেমনি সমুদ্র সীমা বেড়ে অনেক দেশ পানির নিচে তলিয়ে যাবে। ছয় বছর আগে প্যারিসে আমরা একটি যৌথ লক্ষ্য নির্ধারণ করেছিলাম,২০১৫ সালে ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে বৈশ্বিক উষ্ণতা দুই ডিগ্রি সেলসিয়াসে নামিয়ে আনার চুক্তি হয়েছিল। সেখানে ১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নামিয়ে আনার চেষ্টার কথা বলা হয়েছিল। এক দশমিক পাঁচ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় নামিয়ে আনতে হলে কপ-২৬ হচ্ছে শেষ সুযোগ।’

তিনি হুঁশিয়ারি করে বলেন, ’এই পরিকল্পনা যদি সফল না হয় তাহলে উষ্ণ তাপমাত্রায় পুরো পৃথিবী যেমন বিপর্যয়ের মুখে পড়বে, তেমনি সমুদ্র সীমা বেড়ে অনেক দেশ পানির নিচে তলিয়ে যাবে। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বিশ্বের তাপমাত্রা যে প্রতিনিয়ত বেড়ে চলছে সে ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বিশ্ব নেতাদের এবারের জলবায়ু সম্মেলনে নানান প্রশ্নের মুখে পড়তে হবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সবচেয়ে জনপ্রিয় খবর

সাম্প্রতিক মন্তব্য