Friday, June 21, 2024
No menu items!
প্রথম পাতামন কাড়া টক মিষ্টি স্বাদের দেশীয় ফল কদবেলের পুষ্টি উপাদান ও...

মন কাড়া টক মিষ্টি স্বাদের দেশীয় ফল কদবেলের পুষ্টি উপাদান ও উপকারিতা

শক্ত খোলসে আবৃত টক মিষ্টি স্বাদের দেশীয় ফল কৎবেল বা কদবেল। মন কাড়া স্বাদের জন্য ছেলে থেকে মেয়ে সবারই প্রিয় পাকা কদবেল । কদবেল দেখতে অনেকটা টেনিস বলের মতো। বৈজ্ঞানিক নাম Limonia acidissima ইংরেজিতে Wood apple/Elephant Apple/Monkey fruit বলে। এই ফলে আমের চেয়ে সাড়ে তিন গুণ, কাঁঠালের দ্বিগুণ, আর আমলকী ও আনারসের চেয়ে প্রায় চার গুণ বেশি পরিমাণ আমিষ রয়েছে । কদবেল গাছে ফুল আসে মার্চ-এপ্রিল মাস নাগাদ। তবে ফল পাকতে সময় লাগে সেপ্টেম্বর-অক্টবর। শরতের শুরুতে বাজারে প্রচুর পরিমাণে কদবেল পাওয়া যায়। কদবেলের আচার,লবণ আর লঙ্কাগুড়ো দিয়ে কদবেল মাখানোর মন মাতানো স্বাদ সকলের কাছেই অত্যন্ত প্রিয়। এই ফল বিশেষ করে টিনেজ থেকে সব বয়সের মহিলাদের ভীষণ পছন্দের। তাইতো মেয়েদের প্রতিষ্ঠানসমূহের সামনে কদবেল বিক্রেতাদের সমারোহ বসে।

বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস

জগৎ: Plantae
বর্গ: Sapindales
পরিবার: Rutaceae
উপপরিবার: Aurantioideae
গোত্র: Citreae
গণ: Limonia
প্রজাতি: L. acidissima

পুষ্টি উপাদান:
প্রতি ১০০ গ্রাম ওজনের কদবেলের পুষ্টিমান পানীয় অংশ ৮৫ দশমিক ৬ গ্রাম, খনিজপদার্থ ২ দশমিক ২ গ্রাম, ৫.০ গ্রাম হজমযোগ্য আঁশ, আমিষ ৩ দশমিক ৫ গ্রাম, চর্বি শূন্য দশমিক ১ গ্রাম, শর্করা ৮ দশমিক ৬ গ্রাম, ক্যালসিয়াম ৫ দশমিক ৯ মিলিগ্রাম, লৌহ শূন্য দশমিক ৬ মিলিগ্রাম, ভিটামিন-বি শূন্য দশমিক ৮০ মিলিগ্রাম, ভিটামিন সি ১৩ মিলিগ্রাম এবং প্রতি ১০০ গ্রামের শক্তি উৎপাদন ক্ষমতা ৪৯ কিলো ক্যালরি।

কদবেলের উপকারিতা:

  • কদবেল যকৃত ও হৃদপিণ্ডের শক্তিবর্ধক হিসেবে কাজ করে।
  • বিষাক্ত পোকা-মাকড় কামড়ালে ক্ষত স্থানে ফলের শাঁস এবং খোসার গুঁড়ার প্রলেপ দিলে ভালো ফল পাওয়া যায়।
  • কদবেল ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য উপকারী।
  • এই ফল রক্ত পরিষ্কার করতে সাহায্য করে এবং বুক ধড়ফড় ও রক্তের নিম্নচাপ রোধেও সহায়ক।
  • চিনি বা মিছরির সঙ্গে কদবেল পাউডার মিশিয়ে খেলে সঙ্গে শরীরের বলবৃদ্ধি হয় এবং রক্তাল্পতাও দূর হয়।
  • কদবেল মহিলাদের হরমোনের অভাব সংক্রান্ত সমস্যা দূরসহ স্তন ও জরায়ু ক্যান্সার নিরাময় করে থাকে।
  • কদবেল শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে এবং স্নায়ুর শক্তি যোগায়।
  • কদবেল নিয়মিত খেলে কিডনি সুরক্ষিত রাখে।
  • কদবেলের ট্যানিন নামক উপাদান দীর্ঘমেয়াদী ডায়রিয়া ও পেট ব্যথা ভালো করতে সাহায্য করে।
  • কদবেল কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে।
  • কদবেল পাতার নির্যাস শ্বাসযন্ত্রের চিকিৎসায় কার্যকরী ভূমিকা পালন করে।
  • ভিটামিন সি এর ভালো উৎস, তাই স্কার্ভি প্রতিরোধে কাজ করে থাকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সবচেয়ে জনপ্রিয় খবর

সাম্প্রতিক মন্তব্য