Friday, June 21, 2024
No menu items!
প্রথম পাতাএশিয়ার প্রথম ‘চিফ হিট অফিসার’ বুশরা আফরিন

এশিয়ার প্রথম ‘চিফ হিট অফিসার’ বুশরা আফরিন

দীপু

ঢাকার তাপমাত্রা কমাতে যৌথভাবে কাজ করার লক্ষ্যে উত্তর সিটি কর্পোরেশনের সঙ্গে সমঝোতা চুক্তি করেছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক অ্যাড্রিয়েন আর্শট-রক ফেলার ফাউন্ডেশন রেজিলিয়েন্স সেন্টার (আর্শট-রক)। এই প্রতিষ্ঠান বিশ্বের বিভিন্ন দেশে জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় কাজ করছে। এজন্য তারা বিভিন্ন দেশে বড় বড় শহরে নিজেদের অর্থে ‘চিফ হিট অফিসার’ নিয়োগ দিয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের মিয়ামি, সিয়েরা লিওনের ফ্রি টাউন, গ্রিসের এথেন্স, চিলির সান্তিয়াগো, মেক্সিকোর মন্টেরি এবং অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন। এ পদে নিয়োগ পাওয়া সবাই হচ্ছেন নারী। এক প্রতিক্রিয়ায় বুশরা বলেন, ”আমি যখন ছোট ছিলাম, তখন শুনতাম মানুষ পড়াশোনা ও কাজের সুযোগের জন্য নিজ শহর ঢাকা ছেড়ে বিদেশে পাড়ি জমাচ্ছেন। আর এখন বিপজ্জনক তাপমাত্রার কারণে অনেকেই এ শহর ছাড়ছেন।” বুশরা বলেন, ঢাকা আমার বাড়ি। কিন্তু অসহনীয় গরমের কারণে আমি আর নিজের শহরকে চিনতে পারছি না। এশিয়ার মধ্যে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা অনুভব করা দেশগুলোর মধ্যে একটি বাংলাদেশ। গত মাসে তাপপ্রবাহের সময় ঢাকায় তাপমাত্রা ৪০.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস পৌঁছে, যা ছয় দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। ২০২১ সালের বিশ্বব্যাংকের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশ তাপপ্রবাহের স্থায়ী অবস্থার দিকে অগ্রসর হচ্ছে। জানা গেছে, বুশরা আফরিন প্রচণ্ড গরমের মধ্যে ঢাকা উত্তরকে নিরাপদ করার জন্য নেতৃত্বে দেবে। তাপমাত্রা কমাতে তিনি শহরব্যাপী নানা কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবেন। এছাড়া তিনি ঢাকা উত্তরের জনগণের মধ্যে তাপ সচেতনতা বৃদ্ধি, সুরক্ষা প্রচেষ্টা ত্বরান্বিতকরণসহ নতুন নতুন কাজ করবেন। এ বিষয়ে বুশরা বলেন, ঢাকার তাপমাত্রা কমাতে যেসব পদক্ষেপ নেওয়া দরকার সেসব বিষয়ে আমি আরও বেশি ব্যস্ততা বাড়াতে চাই। সকল সম্প্রদায়ের সাথে কাজ করতে চাই। ঢাকার একজন স্থানীয় বাসিন্দা হিসেবে আমি জানি তীব্র তাপপ্রবাহ মোকাবিলায় জরুরি পদক্ষেপের বিকল্প নেই। ঢাকা শহরে তাপমাত্রা উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে। তাপমাত্রা বৃদ্ধির ফলে বিশেষ করে স্বল্প আয়ের শ্রমজীবী মানুষ, বস্তিবাসী, অভিবাসী এবং নারী ও শিশুরা বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। তিনি জানান, বিশ্বের সকল সিএইচওদের হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ গ্রুপটিতে তিনি যুক্ত হয়েছেন। এর মাধ্যমে তিনি সহকর্মী সিএইচওদের কাছ থেকে আরও অনেক কিছু শিখতে চান। ২০৩০ সালের মধ্যে ১ বিলিয়ন মানুষকে চরম তাপ থেকে আরও বেশি স্থিতিস্থাপক করে তোলা হচ্ছে অ্যাড্রিয়েন আরশট-রকফেলার ফাউন্ডেশনের লক্ষ্য। সংস্থাটি বলছে, তাপ একটি নীরব ঘাতক। যা অন্য যেকোনো জলবায়ু বিপর্যয়ের চেয়ে মানুষের জীবনের বেশি ক্ষতি করছে। বিশেষ করে বয়স্ক, ছোট্ট শিশু ও দরিদ্র মানুষেরা এ সংক্রান্ত ঝুঁকিতে বেশি রয়েছেন। ধারণা করা হচ্ছে, ২০৫০ সালের মধ্যে গরম আবহাওয়াজনিত দিনের সংখ্যা দ্বিগুণ হবে। আর এর সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়বে নারীদের ওপর। উল্লেখ্য, বুশরা আফরিন কানাডার কুইন্স ইউনিভার্সিটি থেকে গ্লোবাল ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ ও ঘানার ইনস্টিটিউট অব লোকাল গভর্নমেন্ট স্টাডিজে পড়াশোনা করেছেন। তিনি ঘানার বলগাটাঙ্গায় একটি নারী উন্নয়ন প্রকল্পেও কাজ করেন। পরে বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ এনজিও ‘শক্তি ফাউন্ডেশন’র ব্যবস্থাপনা নির্বাহী হিসেবে যোগ দেন বুশরা। এ ছাড়া তিনি বাংলাদেশের প্রাণি অধিকার সংস্থা অভয়ারণ্যের পলিসি কনসালটেন্ট হিসেবে ডিএনসিসির সঙ্গে কাজ করেছেন।তিনি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলামের মেয়ে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সবচেয়ে জনপ্রিয় খবর

সাম্প্রতিক মন্তব্য